Text size A A A
Color C C C C
পাতা

অফিস সম্পর্কিত

যুব সমাজ যে কোন দেশের মূল্যবান সম্পদ। জাতীয় উন্নয়ন ও অগ্রগতি যুব সমাজর সক্রিয় অংশগ্রহণের উপর অনেকাংশে নির্ভরশীল । যুব সমাজের মেধা, সৃজনশীলতা, সাহস ও প্রতিভাকেই কেন্দ্র করেই গড়ে ওঠে একটি জাতির অর্থনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক পরিমণ্ডল । পৃথিবীর অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও যুব সমাজ জাতির ভবিষ্যত কর্ণধার, নীতি নির্ধারক, ও সিদ্ধান্তগ্রহণকারী । জনসংখ্যার সবচেয়ে প্রতিশ্রুতিশীল ও উত্পাদনমুখী অংশ হচ্ছে যুব গোষ্ঠি । দেশের অসংগঠিত কর্মপ্রত্যাশী এই যুব গোষ্ঠিকে সুসংগঠিত, সুশৃংখল এবং উত্পাদনমুখী শক্তিতে রূপান্তরের লক্ষে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়াধীন যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ।

জাতীয় যুব নীতি অনুসারে বাংলাদেশের ১৮-৩৫ বছর বয়সী জনগোষ্ঠিকে যুব হিসেবে অভিহিত করা হয়, এ বয়স সীমার জনসংখ্যা দেশের মোট জনসংখ্যার এক তৃতীয়াংশ যা আনুমানিক প্রায় ৪ কোটি ৫০ লক্ষ । শ্রম শক্তির যোগান ও সংখ্যার বিবেচনায়ও আমাদের দেশের উন্নয়নের জন্য যুব সমাজের সম্পৃক্ততা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ । সুতরাং দেশের জনসংখ্যার সম্ভাবনাময়, আত্মপ্রত্যয়ী, সৃজনশীল ও উত্পাদনক্ষম এ অংশকে জাতীয় উত্পাদনের মূল ধারায় অবদান রাখার জন্য তাদের গঠনমূলক মানসিকতা ও দায়িত্ববোধ জাগ্রত করে সুশৃঙ্থল কর্মীবাহিনী হিসেবে দেশের আর্থ-সামাজিক কর্মকাণ্ডে নিয়োজিত করার অনুকুল ক্ষেত্র তৈরির উদ্দেশ্যে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর সৃষ্টিলগ্ন থেকেই বাস্তবভিত্তিক কর্মসুচী গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করে আসছে ।

কর্মপ্রত্যাশী অনুত্পাদনশীল যুব সমাজকে সুসংগিঠত, সুশৃঙ্খল এবং উত্পাদনমুখী শক্তিতে রূপান্তরের লক্ষে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার ১৯৭৮ সালে যুব উন্নয়ন মন্ত্রণালয় সৃষ্টি করে ; যা পরবর্তীতে নামকরণ করা হয় যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় । মাঠ পর্যায়ে যুব কার্যক্রম বাস্তবায়নের জন্য ১৯৮১ সালে সৃষ্টি করা হয় যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর । ১৯৯৭-১৯৯৮ অর্থবছর থেকে রাউজান উপজেলায় যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের যাত্রা শুরু হয় ।

 

সৃষ্টিলগ্ন থেকে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর, রাউজান কার্যালয় যুব সমাজের সার্বিক কল্যাণের জন্য বিভিন্ন কর্মসুচীর মাধ্যমে নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের প্রচেষ্টায় ইতোমধ্যে বিভিন্ন ট্রেডে ৪০০০(চার হাজার) জন যুব ও যুব মহিলা প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেছেন। প্রায় ৬৫০ (ছয়শত পঞ্চাশ) জন যুব ও যুব মহিলাকে ১ কোটি ৫০ লক্ষ টাকা যুব ঋণ বিতরণ করা হয়েছে। প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত যুবদের অনেকেই দেশে সম্মানজনক অবস্থান করে নিতে সক্ষমতা অর্জন করেছেন।

যুব সমাজ যে কোন দেশের মূল্যবান সম্পদ। জাতীয় উন্নয়ন ও অগ্রগতি যুব সমাজর সক্রিয় অংশগ্রহণের উপর অনেকাংশে নির্ভরশীল । যুব সমাজের মেধা, সৃজনশীলতা, সাহস ও প্রতিভাকেই কেন্দ্র করেই গড়ে ওঠে একটি জাতির অর্থনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক পরিমণ্ডল । পৃথিবীর অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও যুব সমাজ জাতির ভবিষ্যত কর্ণধার, নীতি নির্ধারক, ও সিদ্ধান্তগ্রহণকারী । জনসংখ্যার সবচেয়ে প্রতিশ্রুতিশীল ও উত্পাদনমুখী অংশ হচ্ছে যুব গোষ্ঠি । দেশের অসংগঠিত কর্মপ্রত্যাশী এই যুব গোষ্ঠিকে সুসংগঠিত, সুশৃংখল এবং উত্পাদনমুখী শক্তিতে রূপান্তরের লক্ষে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়াধীন যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ।

জাতীয় যুব নীতি অনুসারে বাংলাদেশের ১৮-৩৫ বছর বয়সী জনগোষ্ঠিকে যুব হিসেবে অভিহিত করা হয়, এ বয়স সীমার জনসংখ্যা দেশের মোট জনসংখ্যার এক তৃতীয়াংশ যা আনুমানিক প্রায় ৪ কোটি ৫০ লক্ষ । শ্রম শক্তির যোগান ও সংখ্যার বিবেচনায়ও আমাদের দেশের উন্নয়নের জন্য যুব সমাজের সম্পৃক্ততা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ । সুতরাং দেশের জনসংখ্যার সম্ভাবনাময়, আত্মপ্রত্যয়ী, সৃজনশীল ও উত্পাদনক্ষম এ অংশকে জাতীয় উত্পাদনের মূল ধারায় অবদান রাখার জন্য তাদের গঠনমূলক মানসিকতা ও দায়িত্ববোধ জাগ্রত করে সুশৃঙ্থল কর্মীবাহিনী হিসেবে দেশের আর্থ-সামাজিক কর্মকাণ্ডে নিয়োজিত করার অনুকুল ক্ষেত্র তৈরির উদ্দেশ্যে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর সৃষ্টিলগ্ন থেকেই বাস্তবভিত্তিক কর্মসুচী গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করে আসছে ।

কর্মপ্রত্যাশী অনুত্পাদনশীল যুব সমাজকে সুসংগিঠত, সুশৃঙ্খল এবং উত্পাদনমুখী শক্তিতে রূপান্তরের লক্ষে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার ১৯৭৮ সালে যুব উন্নয়ন মন্ত্রণালয় সৃষ্টি করে ; যা পরবর্তীতে নামকরণ করা হয় যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় । মাঠ পর্যায়ে যুব কার্যক্রম বাস্তবায়নের জন্য ১৯৮১ সালে সৃষ্টি করা হয় যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর । ১৯৯৭-১৯৯৮ অর্থবছর থেকে রাউজান উপজেলায় যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের যাত্রা শুরু হয় ।

 

সৃষ্টিলগ্ন থেকে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর, রাউজান কার্যালয় যুব সমাজের সার্বিক কল্যাণের জন্য বিভিন্ন কর্মসুচীর মাধ্যমে নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের প্রচেষ্টায় ইতোমধ্যে বিভিন্ন ট্রেডে ৪০০০(চার হাজার) জন যুব ও যুব মহিলা প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেছেন। প্রায় ৬৫০ (ছয়শত পঞ্চাশ) জন যুব ও যুব মহিলাকে ১ কোটি ৫০ লক্ষ টাকা যুব ঋণ বিতরণ করা হয়েছে। প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত যুবদের অনেকেই দেশে সম্মানজনক অবস্থান করে নিতে সক্ষমতা অর্জন করেছেন।

ছবি